মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৩rd এপ্রিল ২০১৭

জেটিপিডিসি এর প্রযুক্তির সংক্ষিপ্ত বর্ণনাঃ

 

  • পাট আঁশকে কেটে ছোট ছোট টুকরো করে রাসায়িনিক প্রক্রিয়ায় উন্নীত করে তুলার সমতুল্য মান সম্পন্ন করা।
  • উন্নীত পাটকে তুলার সংগে চাহিদা বা প্রয়োজন অনুযায়ী বিভিন্ন অনুপাতে সংমিশ্রিত করা।
  • দেশী এবং তোষা পাট পৃথকভাবে রাসায়নিক প্রক্রিয়ায় উন্নীত করে তুলার সঙ্গে সংমিশ্রণে করিয়ে টেক্সটাইল দ্রব্য উৎপাদনে উপযোগিতা পরীক্ষা করা।
  • ঐ সংমিশ্রিত আঁশ দিয়ে Cotton processing system এ চিকন সুতা (যাকে কটন কাউন্টে পরিমাপ করা হয়) তৈরি করা।
  • বিভিন্ন কাউন্টের সুতার ভৌত ধর্ম পরীক্ষা সম্পন্ন করে তা দিয়ে বিভিন্ন রকমের উন্নত ফেব্রিক্স, শপিং ব্যাগ, বক্রম সহ টেক্সটাইল ও গার্মেন্টস শিল্পে ব্যবহারোপযোগী দ্রব্যাদি উদ্ভাবন ও উৎপাদন করা।
  • উত্তরোত্তর গবেষণার মাধ্যমে আরও চিকন অথচ মজবুত সুতা, পাটের সংগে পশম ও অন্যান্য আঁশ সংমিশ্রন করানো।
  • উদ্ভাবিত ফেব্রিক্স এর রঞ্জন, নকশা করা এবং রঞ্জন গ্রাহীতা ও স্থায়িত্ব পরীক্ষা করা।
  • উৎপাদিত ফেব্রিক্স বহু বার ধুয়ে এর সংকোচন প্রসারণ ক্ষমতা, কোঁচকানো, আয়রনিং এফেক্ট, আকার-আকৃতির পরিবর্তন লক্ষে করা এবং ফেব্রিক্স/সুতাকে উন্নত করার জন্য গবেষণা করা।
  • পাটকে আধুনিক টেক্সটাইল দ্রব্যাদি উৎপাদনের উপযোগী কাঁচামাল হিসাবে পরিচিত করনো।
  • কুটির শিল্পের উপকরণ হিসাবে পাট সংমিশ্রিত সুতার ব্যবহার ও জনপ্রিয়তা যাচাই এবং ভোক্তাদের নিকট থেকে প্রাপ্ত মতামতের ভিত্তিতে দ্রব্যাদির মানোন্নয়ন।
  • গবেষণার এ ধারা এবং উদ্ভাবিত দ্রব্যাদি সম্পর্কে গণসচেতনতা সৃষ্টি, দেশীয় কুটির শিল্পকে সহায়তা, গার্মেন্টস শিল্পকে সহযোগিতা প্রদান করা।

Share with :
Facebook Facebook